SHARE

ওয়েবসাইটের ভিজিটর পেতে একটি ওয়েবসাইটের হোম পেইজ অনেক গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে। হোম পেইজটি যদি আকর্ষনীয় এবং ভিজিটরের কাঙ্ক্ষিত চাহিদার হয় তাহলে আপনার বিক্রয় কয়েক গুন  বেড়ে যাবে। অন্যদিকে ওয়েবসাইটের হোম পেইজ ভালো না হলে তার বিপরীত হতে পারে।

লোগো  ব্যবহার করুনঃ

লোগো ওয়েবসাইটের একটি গুরুত্বপূর্ন এবং পরিচয় প্রদান করে থাকে। তাছাড়া, লোগোর মাধ্যমে খুব সহজে একটি ওয়েবসাইট কে মনে রাখা যায়। আপনি ভিজিটরকে মনে রাখার জন্য লোগো ইউজ করতে হবে। এজন্যই, লোগোর ডিজাইন উন্নত মানের হওয়া দরকার, যাতে কোম্পানি সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়।

সার্ভিস ওভারভিউঃ

হোম পেইজে আপনার সার্ভিসের ওভারভিউ রাখুন।আরো একটু সহজ করে যদি বলি, আপনার ভিজিটর অতি ব্যস্ত একজন মানুষ, ভিজিটরকে ছোট করছি না, আপনি যখন নিজেও একটি ওয়েবসাইট এ যান, আপনিও খুব কম সময় সেই ওয়েবসাইট এ থাকেন, আসলে আমরা সবাই ব্যস্ত তাই আপনার সকল সার্ভিস এর যদি সংক্ষিপ্ত বিবরণ থাকে আপনার ওয়েবসাইট এর হোমপেজে তাহলে কম সময়ে আপনার ভিজিটর আপনার সার্ভিস সম্পর্কে জেনে যেতে পারবে ।

৪.  হাই কোয়ালিটি ইমেজঃ

আপনারা ওয়েবসাইটের অন্যন্য পেইজে কেমন ইমেইজ ব্যবহার করলেন তার থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ন হল হোম পেইজ। হোম পেইজে সর্বদা হাই কোয়ালিটি ইমেইজ ব্যবহার করুন। ইমেইজ অবশ্যই আপনার সার্ভিস বা পণ্য সম্পর্কিত হতে হবে। হাই কোয়ালিটি ইমেইজ হোম পেইজের সৌন্দর্য কয়েকগুনে বৃদ্ধি করে দেয়।

৫.  কেন আপনার সার্ভিসঃ

অন্যদের থেকে আপনার ব্যবসায় বা আপনার পণ্য বা আপনার সার্ভিস দেয়ার পদ্ধতি ভিন্ন এবং আপনার ব্যবসায় এর সাথেই বা আপনার পণ্য কেনো ভিজিটর গ্রহণ করবেন এ সম্পর্কে একটি ছোট বিবরণ দেয়ার চেষ্টা করুন , এটি হোমপেজের মাঝে বা ফুটার এ থাকতে পারে।

৬.  ক্লায়েন্টের প্রশংসা পত্র রাখুনঃ

Testimonial / Review (ক্লায়েন্টের প্রশংসা পত্র), আপনার ক্লায়েন্ট আপনার ব্যবসায়, পণ্য এবং সার্ভিস সম্পর্কে কি বলছে এমন ৫টি খুব ভালো Testimonial আপনার হোমপেজে দেয়ার চেষ্টা করুন । অবশ্যই খেয়াল রাখবেন সবচেয়ে ভালো ৫টি Testimonial, যদি কোন বড় ব্রান্ড এর বা পরিচিত কোন ব্যক্তি এর Testimonial হোমপেজে দিতে পারেন সেটা আপনার জন্য এবং আপনার ব্যবসায় এর জন্য আরো উত্তম ।

৭.  স্যোশাল মিডিয়ার লিঙ্ক যুক্ত করুনঃ

ওয়েবসাইট এর হেডার বা ফুটার এ আপনার ব্যবসায় যে সকল স্যোশাল মিডিয়ার সাথে যুক্ত আছে এবং যে সকল স্যোশাল মিডিয়া আপনার ব্যবসায় এর জন্য ব্যবহার করছেন সে সকল স্যোশাল মিডিয়ার লিঙ্ক গুলো যুক্ত করেন। এর মাধ্যমে, ওয়েবসাইট এর ভিজিটর আপনার স্যোশাল মিডিয়ার সাথে যুক্ত হতে পারে এবং সেখান থেকে আপনার ব্যবসায় সম্পর্কে নতুন নতুন তথ্য পেতে পারে।

৮.  ইমেইল সাবস্ক্রিপশন ফর্মঃ

আপনার কাছে যদি টার্গেটেড ইমেইল না থাকে তাহলে আপনি ভালো ভাবে ইমেইল মার্কেটিং করতে পারবেন না। আপনার সময় এবং টাকা দুটোই অপচয় হবে।  এই টার্গেটেড ইমেইল পাওয়ার জন্য সবচেয়ে কার্যকরী মাধ্যম হল ওয়েবসাইট থেকে ইমেইল সংগ্রহ করা। তাই আপনার হোম পেইজে ইমেইল সাবস্ক্রিপশন ফর্ম ব্যবহার করুন। ইমেইল সাবস্ক্রিপশন ফর্ম পপ-আপ হিসেবেও আসতে পারে বা ফুটারেও থাকতে পারে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY