সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন SEO টিউটোরিয়াল: Off Page SEO এর বেসিক [পর্ব-১৮]

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন SEO টিউটোরিয়াল: Off Page SEO এর বেসিক [পর্ব-১৮]

 

On Page seo সম্পর্কে আমরা পূর্বে জেনেছি। আশা করি এটা সম্পর্কে আপনাদের মোটামুটি একটা ধারণা দিতে পেরেছি। আমরা আজ off page seo সম্পর্কে জানবো। আপনারা On Page seo সম্পর্কে ইতিপূর্বে জেনেছেন। আমি এখন, off page seo নিয়ে বিস্তারিতই ভাবে কথা বলছি। আশা করি, আপনাদের ভালো লাগবে আজকের এই আর্টিকেল।

 

 Off Page Seo

 

আপনারা জানেন যে, , অন্যরা আপনার ওয়েবসাইট সম্পর্কে যা বলছে সেটাই হল Off Page Seo। যখন আপনার on page এর কাজ শেষ, তখন আপনাকে হাত-পা গুটে বসে থাকলে চলবে না।আপনাকে off page seo এর কাজ করতে হবে।  আপনাকে যেটা আগে করতে হবে,তা হল  ব্যাকলিঙ্ক তৈরি করা।

 

 

আপনি যদি এক রাতে ৩০০০ লিঙ্ক করলেন আর গুগল এ TopRank এ চলে গেলেন, এমন কিন্তু করা যাবে না। আপনাদের  ব্যাকলিঙ্ক তৈরি করতে হবে ঠিকই, কিন্তু সেটা দেখে যেন মনে হয় natural link building।আপনাকে লিঙ্ক পপুলারিটি, পেজ অথরিটি ইত্যাদি বিষয় গুলোর প্রতি খেয়াল রাখতে হবে।আপনি যদি Natural way তে লিঙ্ক বিল্ড করতে পারেন তাহলে আপনি বেনিফিটেড হবেন।

 

কিভাবে ন্যাচারাল লিঙ্ক বিল্ড করবেন?

নিচে লক্ষ্য রাখুন,কিভাবে ন্যাচারাল লিঙ্ক বিল্ড করবেন…
১. উদাহরণ দিয়ে আপনাদের বুঝাতে সক্ষম যে, কেউ দিনে ২০০০ লিঙ্ক বিল্ড করলো, তার অর্থ বের করতে পারবেন। এটা  সে হয়তো ২০০ লোককে টাকা দিয়ে প্রতিজনের কাছ থেকে১০ টা কার  লিঙ্ক নিয়েছে । গুগল যখন দেখে যে কেউ রাতারাতি অনেক ব্যাকলিঙ্কের মালিক হয়ে গিয়েছে তখন গুগল এটাকে ভালভাবে দেখে না। গুগল যে কোন সময় আপনার ওয়েবসাইটকে পেনাল্টি করতে পারে। Wikipedia যদি একদিনে ৩০০০ হাজার ব্যাকলিঙ্ক তৈরি করে তাও গুগল কিছু মনে করবে না । আপনার নতুন সাইটে আপনি দিনে ২০০ লিঙ্ক তৈরি করলেও পেনাল্টির শিকার হতে পারেন।

২. মনে করুন, আপনার সাইট একদম New । আপনি চিন্তা করলেন, হ্যা আমি দিনে ১০টা ব্যকলিঙ্ক তৈরি করব তাহলে natural flow থাকবে। আপনারা জানেন যে, ব্যাকলিঙ্ক  মানে হল অন্যের কাছ থেকে লিঙ্ক পাওয়া। আপনারা siteএ যদি প্রতিদিন unique visitor থাকে ১০ জন।    আপনি যদি ব্যাকলিঙ্ক তৈরি করেন তার ডাবল তার অর্থও এটা দাড়াল যে এটা Natural flow না হয় আপনি নিজে তৈরি করছেন নয়তো অন্য কাউকে দিয়ে তৈরি করাচ্ছেন।  আপনি যদি আপনার সাইটে যে পরিমান ভিজিটর হয় তার তিন ভাগের এক ভাগ ব্যাকলিঙ্ক তৈরি করেন। যেমন আপনার ভিজিটর যদি ১০০ জন হয় তাহলে আপনি দৈনিক ২০-২৫ টা ব্যাকলিঙ্ক তৈরি করতে পারেন।

৩. ধরুন,  আমার  সাইটটার প্রধান কিওয়ার্ড হল My Kindle reviews, তাই আপনারা যদি মনে করেন হ্যা আমার সমস্ত ব্যাকলিঙ্ক এর Anchor text এ my kindle reviews লেখা থাকবে। তাহলে আপনি মস্ত বড় ভুল করবেন। একটা সাইটের সমস্ত ব্যাকলিঙ্ক এর anchor text একই হতে পারে না, তাই গুগল সহজেই ধরে ফেলবে যে আপনি keyword stuffing করছেন। তাই Anchor text ব্যবহার করার সময় খেয়াল রাখুন যেন এতে variation থাকে। যেমন: হয়ত ৩০% exact keyword ব্যবহার করলেন, ২০% broad match, ২০% LSI keyword (electronic reading device এটা kindle এর সাথে related কিন্তু একটু অন্যভাবে, lsi keywords finder দিয়ে গুগল করেন), ৩০% general keyword (click here, check out this etc). আপনি যদি আপনার সাইটের Anchor text এভাবে বিন্যাস করেন তাহলে সেটা অনেক বেশি ন্যাচারাল হবে। বেশি Long tail keyword গুলো ব্যবহার করুন।

৪. আপনার আর্টিকেল এর ট্যাগ হিসেবে ৩টার বেশি কিওয়ার্ড ব্যবহার করবেন না।

৫. আপনার সাইটের Do follow এবং No follow ব্যাকলিঙ্ক এর একটা সমন্বয় করুন যেন No follow back link অনেক বেশি না হয়ে যায়।

৬. সব ধরনের top level domain থেকে ব্যাকলিঙ্ক নিন যেমন: .com, .net, .org, .edu ইত্যাদি। সব ধরনের ব্যকলিঙ্ক যদি আপনার থাকে তাহলে এটা অনেক বেশি ন্যাচারাল হবে।

৭. প্রতিদিন কিছু কিছু লিঙ্ক তৈরি করুন। কারণ, আপনি যদি একদিনে ১০০ আর তারপর হয়ত একসপ্তাহ কোন লিঙ্ক তৈরি করলেন না, তাহলে গুগল এটাকে suspicious activity হিসেবে গণ্য করবে।

৮. আপনার সোশ্যাল সাইটের একটিভিটির পরিমান বৃদ্ধি করুন।

৯. বিভিন্ন ধরনের কন্টেন্ট তৈরি করুন যেমন: ভিডিও, অডিও, পাওয়ার পয়েন্টে প্রেজেন্টেশন, পিডিএফ এবং এই কন্টেন্ট গুলো বিভিন্ন ওয়েবসাইটে পাবলিশ করুন সেখান থেকে ব্যাকলিঙ্ক পাবেন আবার ভিজিটরও পাবেন। এমন কয়েকটা সাইট হতে পারে, YouTube, vimeo.com, slideshow, commodious ইত্যাদি।